মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

নবাবগঞ্জের নদ-নদী

বড় নদী করতোয়া: করতোয়া নামের উপত্তি সম্পর্কে এক ধরণের কিংবদন্তী আছে তা হলো- হিমালয় তার কন্যা পার্বতীকে শিবের কর থেকে মাটিতে পড়ে একটি নদীর জন্ম দেয় তাই করতোয়া।

 

মরা করতোয়া: নবাবগঞ্জের উত্তরে ঐতিহাসিক আশুড়ার বিল থেকে উৎপত্তি হয়ে মুনির থানের পূর্বদিক দিয়ে নলশিষা নদীর ধারাকে সংগেকরে চলে গেছে দক্ষিণে তর্পনঘাটে। এখান থেকে সোজা পূর্বদিকে খয়েরগুনিকে দক্ষিণে ঠেলে গাবগাছির পাশ দিয়ে কাঞ্চনডোব গ্রামে। এ স্থানে দুভাগে ভাগ হয়ে একটি ধারা দক্ষিণে দাউদপুরের দিকে, অপর ধারা জুমার পাড়া হয়ে শিবপুরের দক্ষিণে চলে গেছে। অত:পর কুতুব ও মেরিপাড়ার মাঝ দিয়ে জাতেরপাড়ার পূর্ব পার্শ্বে বড় করতোয়ার সাথে যুক্ত হয়েছে। নবাবগঞ্জ থেকে জাতেরপাড়া পর্যন্ত এ ধারার স্থানীয় নাম দাঁড়া নদী।   

 

নলশিষা নদী:পার্বতীপুর উপজেলার দক্ষিণে হামিদপুর ইউনিয়ন থেকে উৎপত্তি হয়ে নবাবগঞ্জ সীমানায় প্রবেশ করেছে। এ ধারাটি নলশিয়া নাম নিয়ে কুশদহ ও জয়পুর ইউনিয়নের সীমানা নির্দেশ করে চলে গেছে দক্ষিণে নবাবগঞ্জে, যুক্ত হয়েছে মরা করতোয়ার সাথে। বেহুলার ঘাট, ডাংশেরঘাট, ধোপঘাট প্রভৃতি কিংবদন্তীর সাথে সংশ্লিষ্ট স্থানগুলো এ নদীর শেষ প্রান্তে মরা করতোয়ার সংযোগস্থলের আশপাশেই অবস্থিত। বর্তমানে ১৫.২০ হাত প্রস্থ, গভীরতাও খুব একটা নেই। সম্ভবত: নালার মতো দেখায় বলে এ নদীর নাম নলশিষা হয়েছে।

ছবি