মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

চড়ারহাট বধ্যভূমি স্মৃতিফলক

স্বাধীনতার ৪০ বছর পর সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম দিনাজপুরের উদ্যোগে গতকাল সোমবার আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করা হল জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার চড়ার হাট বধ্য ভুমি স্মৃতি মিনার।

৭১‘এর ১০ অক্টোবর এই দিনে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ চড়ারহাটে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী প্রায় শতাধিক ঘুমন্ত নিরীহ গ্রামবাসীকে ভোর রাতে বাংকার খোড়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে আসে। পরে তাদের এই জায়গায় একত্রিত করে ব্রাশ ফায়ার করে নির্মম ভাবে হত্যা করে। পরে পার্শ্ববতী গ্রামবাসীরা মৃত্যু ব্যাক্তিদের পার্শ্বের জমিতে কবর খুড়ে তাদের গণকবর দেয়। সে দিন পাশ্ববর্তী আন্দোল গ্রামেও হত্যাযজ্ঞ চলে ঘরে ঘরে বাড়ীতে বাড়ীতে। স্বাধীনতার জন্য সেদিন শহীদ হয়েছেন শতাধিক মানুষ, পঙ্গু হয়েছেন অনেকেই। দাউ দাউ করে জলেছে অনেক গ্রাম।

স্বাধীনতার ৪০ তম বর্ষে শহীদদের স্বরণে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম দিনাজপুরের উদ্যোগে ও নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শিবলী সাদিকের নিজস্ব অর্থ্যায়নে নির্মিত এই স্মৃতি মিনার আনুষ্ঠানিক ভাবে সোমবার সকাল ১১ টায় ঊদ্ভোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ.আ.ম.শ.আরিফিন সিদ্দিক। উদ্ভোধন শেষে শহীদ দের স্মরণে দোয়া ও আলোচনা সভা সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম দিনাজপুর সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন হাজি মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. আফজাল হোসেন, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম দিনাজপুর সাধারন সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু, সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিত্ব ম হামিদ, মুক্তিযোদ্ধা অজিত কুমার রায় প্রমুখ।